fish ball curry

♥ ফিসবল কারি ♥

ফিসবল কারি (Fish ball Curry)

উপকরণ :
যে কোন বড় মাছের পিস ( সেদধ করা ৩/৪ কাপ) পরিমান কম করলে উপকরণ কম করে নিতে হবে। ( আমি দমাঝারি সাইজের রুইমাছের পিস ও লেজ দিয়ে করেছি),
পিয়াজবাটা বা মিহি কুঁচি ১ টে- চামুচ,
শুকনামরিচগুড়া, রশুনবাটা, আদাবাটা, ধনের গুড়া, ভাজা জিরারগুড়া ১ চা-চামুচ করে,
গোলমরিচ গুড়া আধা চা-চামুচ,
কাঁচামরিচ কুঁচি ২ টে- চামুচ,
ধনেরপাতা কুঁচি ( ইচছা),
সেদধ আলু ১ টা,
কণফলাওয়ার ২ টে- চামচ,
লবন সবাদমত, তেল পরিমানমত।

ঝেলের জন্য :
পিয়াজবাটা আধা কাপ,
শুকনামরিচগুড়া ১ চা- চামুচ,
একটু আদা ও রশুনবাটা,
ভাজা জিরারগুড়া ১ চা-চামুচ,
শুকনামরিচ ১ টা,
কাঁচামরিচ ফাঁলি ২ টা,
চিনি সামান্য,
টমেটোসস ২ টে- চামুচ,
ধনেরপাতা কুঁচি ( ইচছা)।

প্রনালি :
মাছের পিসগুলো অলপ পানি ও লবন দিয়ে সেদধ করে নিন। সেদধ করা মাছ ঠান্ডা হলে মাছের কাঁটা বেছে নিন ( পরিমানে ৩/৪ কাপ হবে বাছা মাছ )। আলাদা ভাবে আলু সেদধ করে ভালো করে চটকিয়ে ভরতা করে নিন এবং সেদধ কাটা বাছা মাছের সাথে মিশিয়ে রাখুন।
এবারে একটি পাত্রে উপকরণের সমস্ত মশল্লা একসাথে নিয়ে হাত দিয়ে চটকিয়ে আলু ও মাছের সাথে ভালো করে মাখিয়ে নিন। গোলগোল করে বল বানিয়ে নিন সবগুলোই। ( এভাবে ডিপফ্রিজে রেখে প্রয়োজনে ভেজে ও নিতে পারেন।)

চুলাতে কড়ায় দিয়ে হালকা জ্বালে ডুবো তেলে মাছরে বলগুলো সোনালী রঙে ভেজে তুলুন। এখন আবার কড়ায়ে পরিমানমত তেল দিয়ে শুকনামরিচ ছেড়ে দিন। ঝোলের ঊপকরণের সমস্ত মশল্লা দিয়ে দিন ভালো করে কষিয়ে অলপ পানি দিয়ে দিন। বলক উঠলে মাছের বলগুলো আসেত করে ঝোলের উপর ছেড়ে দিন। টমেটোসস দিয়ে দিন। ঝোল ঘন ও মাখমাখ হয়ে এলে চিনি ও ভাজা জিরারগুড়া ছিটিয়ে দিন অালাদা একটা ঘ্রাণ বের হবে। ধনেরপাতা কুঁচি ( ইচছা) ছিটিয়ে দিন। দমে ঢেকে রাখুন কিছুখন পর নামিয়ে নিন। মজার ফিসবল তরকারী।