পুলিপিঠা

সবজীর ঝালঝাল মচমচা পুলিপিঠা

সবজীর ঝালঝাল মচমচা পুলিপিঠা

উপকরন : চাউলেরর গুড়া বা ময়দা ( যেহেতু পিঠা তো তাই চাউলেরগুড়া ) ২ কাপ,
তরল দুধ খামির করতে যতটুকু লাগে,
চিনি চা- চামুচের ১ চামুচ,
লবন একটু,
( ময়দা দিয়ে করলে দুধ + ডিম + চিনি + লবন + তেল দিয়ে মাখিয়ে রেখে দিতে হবে কিছুখন )

সবজী : ফুলকপি, বাঁধাকপি, আলু, গাজর, মটরশুঁটি, মাংশের কিমা সব ১ কাপ করে ( পরিমানমত বা ইচছামত ).
ভাজার জন্য তেল ও অলপ ফুড কালার ( জাফরান রঙ) .

প্রনালী : দুধ বলক তুলে চাউলের গুড়া ও উপকরন দিয়ে খমির করে নিতে হবে। একটু গরম অবসথায় ভালো করে ময়ম বা ছেণে নিতে হবে । এবারে আটাকে ছোট ছোট গোলা করে রুটির মত পাতলা পাতলা করে বেলে সবজী দিয়ে রুটির একদিকে উলটিয়ে ভাজ করে চাকু দিয়ে কেটে নিতে হবে ( ছবিতে দেয়া আছে) এবারে আঙগুল দিয়ে মুখটা চেপেচেপে মুড়িয়ে নিতে হবে। তারপর পছন্দমত ফুড কালার গুলিয়ে কটনবার দিয়ে রঙ করে নিন পছন্দমত।

পুরের জন্য : সবজী ছোট ছোট করে কেটে ধুয়ে রাখুন। মাংশের কিমা ধুয়ে নিন। এবারে কড়ায়ে তেল গরম হলে পিয়াজকুঁচি ১ কাপ, রশুনকুঁচি, আদাবাটা, মরিচগুড়া টে- চামুচের ১ চামুচ করে দিয়ে দিন। হলুদগুড়া, ধনেরগুড়া, জিরারগুড়া চা- চামুচের ১ চামুচ করে দিয়ে দিন, লবন সবাদমত দিয়ে কষিয়ে কষিয়ে অলপ পানি দিয়ে ঢেকে রাখুন সেদধ হয়ে এলে সবজী দিয়ে কষিয়ে নিন পানির দরকার হলে অলপ পানি দিয়ে জ্বাল কম করে দিন। এখন সবজী সেদধ হয়ে পানি শুকিয়ে এলে কাঁচামরিচ কুঁচি ও গরমমশললা গুড়া দিয়ে নেড়ে ঝাল,লবন চেখে নামিয়ে রাখুন।

ভাজা : কড়ায়ে তেল গরম হলে পিঠা একএক করে দিয়ে দিন। ডুবো তেলে হালকা জ্বালে ধীরেধীরে মচমচা করে ভেজে তুলুন মজার ঝালঝাল মচমচা পুলিপিঠা।
এভাবে নারিকেলের পুর দিয়ে ও করতে পারেন মিষ্টি পুলিপিঠা।